1. smsitservice007gmail.com : admin :
রাজশাহীর বাঘায় নিয়োগ বাণিজ্যে উত্তেজনা - সতেজ বার্তা ২৪
রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ০৪:৪৫ অপরাহ্ন
রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ০৪:৪৫ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
ছাত্রলীগের সভাপতি আতিকের ডিগবাজি না’কি বিদ্রোহ? সাভারে মাদকের সয়লব , এক নজরে মাদক গ্যাং রাজশাহী আওয়ামী  প্রকাশ্যে বিভক্তির আভাস দায়ী কে ? তানোরে ৩টি পাকা রাস্তা নির্মাণ কাজের উদ্বোধন ভোলার লালমোহন উপজেলার ৭নং পশ্চিম চর উমেদ ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী তরুন মেধাবী যুবনেতা সাইফুল ইসলাম শাকিল তানোরে প্রবেশপত্র আটকে অর্থ আদায়ের অভিযোগ নারায়ণগঞ্জ চাষাড়ায় ফিল্ম স্টাইলে কুপিয়ে দানিয়াল নামের এক যুবককে হত্যা করলো দুর্বৃত্তরা..! তানোরে দোকানের সামনে অবৈধ স্থাপনা নির্মাণ করে প্রতিবন্ধকতা ২০ বছর পাড় হয়নি ধর্ষন, মাদক সহ ২৪টি মামার আসামি ইয়াবা সুন্দরীর ছেলে কিশোর গ্যাং লিডার তানভীরের. রাজশাহীতে সংরক্ষিত আসনে এক ডজন নেত্রী আলোচনায় মর্জিনা

রাজশাহীর বাঘায় নিয়োগ বাণিজ্যে উত্তেজনা

রাজশাহী প্রতিনিধিঃ
  • প্রকাশের সময় : সোমবার, ২ অক্টোবর, ২০২৩
  • ৯৬ বার পঠিত

রাজশাহীর বাঘা উপজেলার বাউসা মহাবিদ্যালয়ের (ভারপ্রাপ্ত) অধ্যক্ষ ও ম্যানেজিং কমিটির সভাপতির বিরুদ্ধে  অর্থের বিনিময়ে পছন্দের প্রার্থীদের অবৈধভাবে নিয়োগ দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। অবৈধ নিয়োগ বাণিজ্যের খবর ছড়িয়ে পড়লে এলাকাবাসী বিক্ষুব্ধ হয়ে উঠেছে।

এদিকে  গত ১৮ সেপ্টেম্বর এলাকাবাসীর পক্ষে ফাহিম মুন্তাসির (প্রান্ত) বাদি হয়ে  পুরো নিয়োগ পক্রিয়া সুষ্ঠু তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য বাঘা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার (ইউএনও) কাছে লিখিত অভিযোগ করেছেন।অভিযোগে প্রকাশ, গত ১৬ সেপ্টেম্বর অত্যন্ত গোপনে বাউসা মহাবিদ্যালয়ে ৫টি পদে (অধ্যক্ষ, ল্যাব সহকারী ২টি অফিস সহায়ক ও নিরাপত্তাকর্মী) অর্থের বিনিময়ে পচ্ছন্দের প্রার্থীদের  নিয়োগ করা হয়েছে। এতে অধ্যক্ষ ও সভাপতির বিরুদ্ধে জনমনে চরম অসন্তোষ সৃষ্টি হয়েছে। বর্তমান প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার ডিজিটাল বাংলাদেশ,স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মানে সময়ে বাউসা মহাবিদ্যালয়ে ৫টি পদে নিয়োগ দেয়া হবে এটি বাউসার জনগণ জানতে পারল না। বুঝতে পারলো না বিষটি শুধু অর্থের বিনিময়ে হয়েছে। কলেজের সার্বিক উন্নতি এলাকার শান্তি প্রতিষ্ঠার লক্ষে গোটা নিয়োগ প্রক্রিয়া সুষ্ঠ তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য বিনীত ভাবে অনুরোধ করছি।সাম্প্রতিক বাউসা ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান এক অনুষ্ঠানে উপস্থিত জনতার সামনে মাইকে এই নিয়োগের বিষয়ে কঠোর সমালোচনা ও ক্ষোভ প্রকাশ করে বক্তব্য দেন।

এ থেকেই এলাকাবাসীসহ মহাবিদ্যালের অভিভাবক সদস্যরা অত্যন্ত গোপনে ও অর্থের বিনিময়ে পছন্দের প্রার্থীদের অবৈধভাবে নিয়োগ দেওয়ার বিষয় জানতে পারেন এবং বিষয়টা নিয়ে এলাকায় ব্যপক সমালোচনা ও ক্ষোভের সৃষ্টি হয়।ম্যানেজিং কমিটির অভিভাবক সদস্য  মুন্টু আলী বলেন, নিয়োগের বিষয় এ আমি কিছুই জানি না। নিয়োগের কয়েক দিন পর লোক মুখে শুনে অধ্যক্ষ শফিকুল ইসলাম নান্টুকে ফোন দিয়ে বিষয়টি জিজ্ঞাসা করলে, সে আমাকে বলে নিয়োগ হয়েছে। আমি তখন তাকে প্রশ্ন করলাম নিয়োগ হলো কিন্তু আমাদের জানালেন না, সে বলে পরে জানতে পারবেন। প্রতিষ্ঠানের সম্মান ক্ষুন্ন করে দুর্নীতি-অনিয়মের মাধ্যমে কৌশলে নিয়োগ দেয়া হয়েছে। অভিযোগকারী ফাহিম মুন্তাসির প্রান্ত দাবি করে বলেন, আমাদের কলেজের (ভারপ্রাপ্ত) অধ্যক্ষ নিজেই নিজেকে অধ্যক্ষে নিয়োগ দিলেন। ৫০ লাখ টাকার বিনিময়ে অধ্যক্ষ ও সভাপতি এই নিয়োগ বাণিজ্যের প্রক্রিয়া সম্ন্ন করেছে। আমার জানামতে আমাদের কলেজটিতে কোন ল্যাব নেই তারপরও ল্যাব সহকারী দুটি পদে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।নাম প্রকাশের অনিচ্ছুক নিয়োগ বঞ্চিত একাধিক প্রার্থী বলেন, অধ্যক্ষ শফিকুল ইসলাম নান্টু ও ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি শহিদুল আলম বাবু মিলে প্রত্যেকের কাছ থেকে ১৫ থেকে ২০ লাখ টাকা পর্যন্ত হাতিয়ে নিয়ে পছন্দের প্রার্থীদের নিয়োগ দিয়েছেন।

এই নিয়োগে অধ্যক্ষ ও সভাপতি  ৮০ লাখ টাকার বাণিজ্য করেছেন বলে দাবি তাদের৷ বাউসা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের এক জৈষ্ঠ নেতা জানান, চলতি বছরেই জাতীয় নির্বাচন। এই নির্বাচন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের জন্য একটি বড় চ্যালেঞ্জ। নির্বাচন সামনে রেখে অধ্যক্ষ ও সভাপতির এই নিয়োগ বানিজ্যের বিষয়টি নিয়ে জনগণের মনে ব্যপক ক্ষোভের সৃষ্টি হচ্ছে, এতে করে জাতীয় নির্বাচনে এর বিরুপ প্রতিক্রিয়া পরবে বলে ধারণা করছেন। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক সহকারী শিক্ষক বলেন, নিয়োগের পুরো টাকা এক প্রতিমন্ত্রী পকেটে গেছে, এখানে অধ্যক্ষের কিছু  করার নাই। এ বিষয়ে বাউসা মহাবিদ্যালয়ের অধ্যক্ষ শফিকুল ইসলাম নান্টু বলেন, সরকারি বিধি মোতাবেক নিয়োগ হয়েছে। ৫টি পদে ১৫ জন রাজশাহী সিটি কলেজে পরীক্ষাতে অংশগ্রহণ করেছে। এখানে টাকার কোন বানিজ্যের ঘটনা নেই।

এবিষয়ে ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি শহিদুল আলম বাবু বলেন, ‘সব কিছু বিধি মোতাবেক হয়েছে। স্বচ্ছভাবে প্রার্থীদের নিয়োগ দেয়া হয়েছে।বাউসা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নূর মোহাম্মদ তুফান জানান, একজন প্রিন্সিপাল রাতের অন্ধকারে এলাকার লোকজনের সঙ্গে প্রতারণা করে পরিচালনা কমিটির সকল সদস্যদের না জানিয়ে ৫০লাখ টাকার বিনিময়ে ৫ জনকে নিয়োগ দিয়েছেন। তাহলে এলাকাবাসী প্রতিষ্ঠানটিকে কি সহযোগিতা করবে ?

এবিষয়ে বাঘা উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার আ ফ ম হাসান বলেন, বাউসা মহাবিদ্যালয় নিয়োগ বিষয়ে একটি অভিযোগ গতকাল পেয়েছি। আমি তদন্তে যাব,আর আমি নিয়োগ বিষয়ে কোন কিছু জানি নাএ বিষয়ে বাঘা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) শারমিন আখতার বলেন, এবিষয়ে আমার সঠিক জানা নেই, সময় পেলে জেনে জানাতে পারব।

এ জাতীয় আরও খবর
Translate »