1. smsitservice007gmail.com : admin :
তানোরে বিএমডিএ'র গাছ নিলামে অনিয়মঃতোলপাড় - সতেজ বার্তা ২৪
মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ০১:১১ পূর্বাহ্ন
মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ০১:১১ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
ছাত্রলীগের সভাপতি আতিকের ডিগবাজি না’কি বিদ্রোহ? সাভারে মাদকের সয়লব , এক নজরে মাদক গ্যাং রাজশাহী আওয়ামী  প্রকাশ্যে বিভক্তির আভাস দায়ী কে ? তানোরে ৩টি পাকা রাস্তা নির্মাণ কাজের উদ্বোধন ভোলার লালমোহন উপজেলার ৭নং পশ্চিম চর উমেদ ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী তরুন মেধাবী যুবনেতা সাইফুল ইসলাম শাকিল তানোরে প্রবেশপত্র আটকে অর্থ আদায়ের অভিযোগ নারায়ণগঞ্জ চাষাড়ায় ফিল্ম স্টাইলে কুপিয়ে দানিয়াল নামের এক যুবককে হত্যা করলো দুর্বৃত্তরা..! তানোরে দোকানের সামনে অবৈধ স্থাপনা নির্মাণ করে প্রতিবন্ধকতা ২০ বছর পাড় হয়নি ধর্ষন, মাদক সহ ২৪টি মামার আসামি ইয়াবা সুন্দরীর ছেলে কিশোর গ্যাং লিডার তানভীরের. রাজশাহীতে সংরক্ষিত আসনে এক ডজন নেত্রী আলোচনায় মর্জিনা

তানোরে বিএমডিএ’র গাছ নিলামে অনিয়মঃতোলপাড়

তানোর(রাজশাহী)প্রতিনিধিঃ
  • প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার, ২৪ অক্টোবর, ২০২৩
  • ১১২ বার পঠিত

রাজশাহীর তানোরে বরেন্দ্র বহুমুখী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (বিএমডিএ) গাছ নিলামে অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। এঘটনায় সংশ্লিষ্ট বিভাগে ব্যাপক তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে। স্থানীয়রা জানান,তানোর বিএমডিএর সহকারী প্রকৌশলী কামরুজ্জামান ও মামুনুর রশিদ মামুন গোপণে কয়েক লাখ টাকার মুল্যে ৪১টি গাছ নামমাত্র মুল্য তাদের পচ্ছন্দের কাঠ ব্যবসায়ী জনৈক বকুল ও রাজ্জাকের কাছে বিক্রি করে বড় অঙ্কের অর্থ হাতিয়ে দিয়েছেন। উপজেলার মুন্ডুমালা পৌর এলাকার পাঁচন্দর কাউন্সিল মোড় থেকে প্রকাশনগর, সোনামূখী ভায়া কালিকান্দর দও দুবইল মোড় থেকে প্রকাশ নগর রাস্তায় এসব গাছ নিধনের ঘটনা ঘটেছে। সরেজমিন তদন্ত করা হলে অভিযোগের সত্যতা পাওয়া যাবে।
এদিকে গত ২৩ অক্টোবর সোমবার বিএমডিএ’র তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী আব্দুল লতিফ সরেজমিন ঘটনা তদন্ত করেছেন। তিনি বলেন, তিনি তো সব রাস্তা চিনতে পারেননি। পাঁচন্দর কাউন্সিল মোড় থেকে প্রকাশ নগর পর্যন্ত রাস্তায় গাছ দেখেছেন, সেখানে ৪১টি গাছ বাদেও অন্য আরো নয়টি গাছ আগের কাটা বলে তথ্য পেয়েছেন। এদিকে, অতিরিক্ত গাছ নিধনে বিভাগীয় তদন্তের দাবি তুলেছেন এলাকাবাসী।
স্থানীয় সুত্রে জানা গেছে, চলতি মাসের ১৮ অক্টোবর গোপনে  ৪১টি গাছ নিলাম দেয় বিএমডিএর সহকারী প্রকৌশলী কামরুজ্জামান ও মামুনুর রশিদ মামুন। তাদের পচ্ছন্দের কাঠ ব্যবসায়ী বকুল ও রাজ্জাক এসব গাছ কাটার কার্যাদেশ পায়। কিন্তু সহকারী প্রকৌশলী ও মামুনুর রশিদ মামুনের যোগসাজশে তারা ৪১টির বেশী গাছ কেটে নিয়েছে।
সরেজমিন দেখা গেছে, পাঁচন্দর কাউন্সিল মোড় কালিকাকান্দর-সোনামুখী- ভায়া প্রকাশনগর পর্যন্ত  রাস্তায় ৪১টি গাছ নিলাম দেয়া হলেও ৬২টি গাছ কাটার চিহ্ন পাওয়া গেছে।আবার অনেক কাটা গাছের গোড়ায় মাটি দিয়ে ঢেকে দেয়া হয়েছে, যাতে করে কেউ বুঝতে না পারে। এসব কাটা গাছ জমা করা হয় আয়ড়া মোড়ে। সেখানে দেখা যায় শ্রমিকরা গাছগুলো গাড়িতে তুলছেন। তাজা-মরা সব রকম গাছ রয়েছে। দেখভাল করছিল দেবিপুর গ্রামের হারুন নামের এক ব্যক্তি। তার কাছে জানতে চাওয়া এসব গাছ কোন রাস্তার তিনি জানান পাঁচন্দর কাউন্সিল মোড়ের রাস্তার ও দুবইল থেকে প্রকাশনগর গ্রামের রাস্তার। দুবইল রাস্তার গাছের কোন নিলাম হয়নি কিভাবে কাটলেন জানতে চাইলে তিনি জানান এতকিছু আমি বলতে পারবো না। বাড়তি গাছ কাটা হয়েছে আপনারদেরকে (সাংবাদিক)  সম্মানিত করা হবে। তবে এসব নিয়ে কর্তৃপক্ষকে কিছুই বলা যাবে না।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, কদিন আগেও চুনিয়াপাড়া-বিনোদপুর কাঁচা রাস্তার প্রায় ৮০টি গাছ কেটে নিয়েছেন আলোচিত কাঠ ব্যবসায়ী বকুল।
অন্যদিকে নিলামের কাগজে দেখা যায় ১৬১৯ নম্বর স্মারকে, বরাবর, রাজশাহী কাশিয়াডাঙ্গা এলাকার মৃত জিয়ারত আলীর পুত্র বকুল মিয়া। বিষয়: মরা ও ঝুকিপূর্ণ গাছ নিলাম ও কার্যাদেশ প্রদান প্রসঙ্গে। সুত্র, বিএমডিএ/স:প্র:/তানোর/ নি,বি/২০২৩/১৬১৩। তারিখ ১৭/১০/২০২৩। উপরোক্ত বিষয় ও সুত্রের আলোকে আপনাকে জানানো যাইতেছে যে, বিএমডিএ তানোর জোনের আওতাধীন নিম্ম তালিকায় উল্লেখিত রাস্তার মরা ও ঝুকিপূর্ণ গাছ গত ১৮/১০/২০২৩ ইং তারিখে প্রকাশ্যে নিলামে বিক্রি করা হয়। বিক্রয়কৃত গাছের বিবরন নিম্মরুপ। মুন্ডুমালা পৌরসভার সোনামূখী হতে কালিকান্দর রাস্তার অভিমুখ, ২১ টি শিশু গাছ। নিলাম বিক্রয় মূল্য এবং ৭.৫% ভ্যাট ও ১০% উৎস আয়কর পরিশোধ করায় ২১টি শিশু গাছ আগামী তিন দিনের মধ্যে ( সরকারী ছুটি) ব্যতিত নিজ খরচে কেটে নিবেন। গত ১৯ তারিখে সহকারী প্রকৌশলী কামরুজ্জামান সাক্ষর করেন।
নিলামের কার্যাদেশে কত টাকায় নিলাম হয়েছে কোন কিছুই উল্লেখ করা হয় নি। যার কারনে সরকার বঞ্চিত হবেন রাজস্ব থেকে অভিমত গ্রামবাসীর। একই কায়দায় একই রাস্তায় ২০টি শিশু গাছের কার্যাদেশ দেয়া হয় তানোর পৌর এলাকার আমশো মথুরাপুর গ্রামের করাতকল মালিক আব্দুর রাজ্জাককে।
জানা গেছে, নীতিমালা অনুযায়ী রাস্তার ধারের ঝড়েপড়া গাছ ঘটনা স্থলেই নিলাম দেয়া যায়। তবে খাড়া এবং একাধিক গাছ নিলাম দিতে হলে পত্রিকায় বিজ্ঞাপন, ঢোলশহরত ও মাইকিং করার কথা। কিন্ত্ত এসব কিছু না করেই গোপণে পচ্ছন্দের ব্যক্তিদের গাছ কাটার কাজ পাইয়ে দিয়েছেন বলে একাধিক সুত্র নিশ্চিত করেছে। এবিষয়ে কাঠ ব্যবসায়ী বকুল মিয়া ও আব্দুর রাজ্জাক বলেন, প্রকাশ্যে নিলাম নিয়ে গাছ কাটা হয়েছে। নিলাম হয়েছে সোনামূখী-কালিকন্দর রাস্তার কিন্তু দুবইল রাস্তার গাছ কিভাবে কাটলেন জানতে চাইলে তারা জানান, এখন তারা ব্যস্ত আছেন পরে কথা হবে। এবিষয়ে বিএমডিএ তানোর জোনের সহকারী প্রকৌশলী কামরুজ্জামানের মোবাইলে একাধিকবার ফোন দেয়া হলেও তিনি রিসিভ করেননি,এমনকি খুদে বার্তা দিয়েও কোনো সাড়া মেলেনি। এবিষয়ে বিএমডিএর নির্বাহী পরিচালক আব্দুর রশিদ বলেন, তদন্ত টিম পাঠানো হয়েছে। তদন্ত করার পর আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে
এ জাতীয় আরও খবর
Translate »