1. admin@sotejbarta24.com : admin : Rj Shamim
বুধবার, ১৮ মে ২০২২, ০৬:৩৪ অপরাহ্ন
সর্বশেষ:
ঢাকা আরিচা মহা সড়কের বাথুলীতে সেলফী ও ট্রাকের সংর্ঘষ ; নিহত ৫ , আহত অনেকজন ॥

রায়পুরায় অবৈধ বিদুৎ ব্যবহারের জরিমানার জেরে বড় ভাইয়ের হাতে ছোট ভাই খুন

পারভেজ মোশারফ, রায়পুরা
  • আপডেট সময়: মঙ্গলবার, ১২ এপ্রিল, ২০২২
  • ৫৪ বার পঠিত
নরসিংদীর রায়পুরায় মিটার নিয়ে ও অবৈধ বিদুৎ ব্যাবহারের জরিমানার  জেরে বড় ভাই আব্দুল মোতালিব (৪৫) বাড়ির কাঁঠাল গাছের সাথে বেঁধে লাঠি দিয়ে পিটিয়ে তারই ছোট ভাই শফিকুল ইসলাম (২৫) কে হত্যা করার খবর পাওয়া গেছে। গতকাল
সোমবার (১১ এপ্রিল) দিবাগত রাতে হাইরমারা ইউনিয়নের দড়ি হাইরমারা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নিহত শফিকুল ও অভিযুক্ত মোতালিব ওই গ্রামের মৃত মুর্শেদ মিয়ার ছেলে। শফিকুল মনিপুরা বাজারে কুলিমজুরের কাজ করত। খবর পেয়ে সোমবার সকালে রায়পুরা থানার ভারপ্রাপ্ত অফিসার ইনচার্জ আজিজুর রহমান ও অপারেশন আতাউর রহমান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।
নিহতের পরিবারের লোকজন জানায়, মোতালিব মানুষের জমিতে টাকার বিনিময়ে মটরে পানি দেওয়ার কাজ করতো। সেজন্য সে পল্লী বিদ্যুতের অবৈধ্য লাইন ব্যবহার করতো। আগে সেই মিটার থেকে শফিকুল লাইন ব্যবহার করতো। কিছুদিন আগে মোতালিব পল্লী বিদ্যুতের লোকজনের ভয়ে মিটারটি সরিয়ে অন্যত্র স্থাপন করে। যার ফলে শফিকুল আর তার ঘরে বিদ্যুত ব্যবহার করতে পারছিলো না। তাই শফিক ক্ষুব্দ হয়ে বড় ভাই মোতালিবের নামে পল্লী বিদ্যুত অফিসে একটি অভিযোগ করে। তার প্রেক্ষিতে পল্লী বিদ্যুত কর্তৃপক্ষ গতকাল লাইনটি কেটে দেয় ও মোতালিবকে বিদ্যুৎ অফিসে ২০০০০ টাকা জরিমানা দিতে হয়। এই কারনে মোতালিব কাল সাড়াদিন বিভিন্ন কৌশলে শফিকুলকে খোঁজে। এমতাবস্তায় তাদের মা তার বোনের শ^শুরবাড়িতে থাকায় তাকে ফোন করে ভাই শফিকুলকে মেরে ফেলার হুমকিও দেয় মোতালিব। পরে এক পর্যায়ে রাতে যখন শফিকুল ঘুমাতে আসে তখন শফিকুলকে ধরে এনে বাড়ির উঠানের কাঁঠাল গাছের সাথে বেঁধে পিটিয়ে তাকে হত্যা করে পালিয়ে যায় বড় ভাই মোতালিব। পরে সকালে তাদের মামা বাড়িতে এসে বাড়ির উঠানে শফিকুলের মরদেহ দেখতে পায়।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক তাদের প্রতিবেশি জানান, মাঝ রাতে আমি যখন চিৎকার চেচাঁমেচির শব্দ শুনে বের হই তখন মোতালিব অর্কথ্য ভাষায় গালাগালি করে আমার দিকে তেড়ে আসে। আমার স্বামী ওই দিন বাড়িতে না থাকায় ঘর থেকে বের হওয়ার সাহস দেখাই নাই। সকালে তাদের মামার চিৎকার শুনে বেড়িয়ে দেখি উঠুনে শফিকুলের মরদেহ পরে আছে।
এ ব্যাপারে রায়পুরা থানা অফিসার ইনর্চাজ মোঃ আজিজুর রহমান পরশ টিভিকে বলেন, মূলত মিটার নিয়ে দন্ধের জেরে এ খুনের ঘটনা ঘটেছে। তার শরীরে বিভিন্ন আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। ধারনা করা হচ্ছে গাছের সাথে বেঁধে তাকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে। প্রাথমিক সুরতহাল শেষে লাশ ময়নাতদন্তের জন্য নরসিংদী সদর হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আরও খবর...
English version»